275123857_5392081590804947_7645920298384317964_n
275187151_5392083020804804_5580394977150183017_n
275230458_5392084820804624_5084369747645162833_n
275295681_5392082410804865_8275867545651346495_n
275296860_5392082144138225_2094014985367459504_n
275612577_5392081930804913_8855629171594990888_n
275612966_5392081707471602_4257437219058755481_n
275674802_5392080070805099_4755175708286807238_n
Exit full screenEnter Full screen
previous arrow
next arrow
Shadow

আমি কিছুটা অসুস্থ্য বোধ করছি বলে বসে পড়লেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আল মামুন সরকার। তারপর ক্রমে তার শরীর খারাপের দিকে যেতে থাকলো। নিজের বক্তব্য থামিয়ে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক খোঁজ খবর নিচ্ছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের। মুহুর্তের মধ্যেই চলে আসলো আত্মীয়ের প্রাথমিক চিকিৎসা দলের সদস্যরা।

মঞ্চে বসিয়ে রেখে তার রক্তচাপ এবং ডায়াবেটিস পরিমাপ করেন চিকিৎসক জহির উদ্দিন এবং আত্মীয় সমন্বয়ক সুজন সাহা। প্রেসার ৮০/৬০ দেখে চিকিৎসা শুরু হয় তাৎক্ষনিক। এক পর্যায়ে সংজ্ঞা হারালে আত্মীয় সদস্য অনিক চক্রবর্তী মাথায় করে হুইল চেয়ার নিয়ে দৌড়ে আসেন। আত্মীয় সংগঠক শাহাব উদ্দিন বেগ আল মামুন সরকারকে হুইল চেয়ার থেকে কোলে করে অ্যাম্বুলেন্সে তোলেন। পরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়।

বেলা এগারটা। তারকাটায় আহত হয়ে রক্তাত্ব পা নিয়ে চিকিৎসা কেন্দ্রে আসেন যুবলীগ নেতা রোজবেল্ট খাদেম। আত্মীয় সদস্যরা তার পা ড্রেসিং করে দিলে অনেকটা ভালো বোধ করেন তিনি।

অনুষ্ঠানের মাঝখানে প্রচন্ড রোদে সংজ্ঞা হারান মাঝ বয়সি এক নারী। আত্মীয় সদস্যরা তার মাথায় পানি ঢেলে সুস্থ করার দায়িত্ব নেন। দ্রুত কাজ শুরু করেন চিকিৎসকরা।

গতকাল শনিবার দীর্ঘ নয় বছর পর উপজেলা পরিষদ মাঠে আখাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনকে কেন্দ্র করে হাজার হাজার জনতার প্রাথমিক চিকিৎসার দায়িত্ব নেয় গণ মানুষের সংগঠন আত্মীয়। সকাল আটটা থেকে দুপুর পর্যন্ত শতাধিক অসুস্থ নারী, পুরুষকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। সংগঠনের ৪২জন স্বেচ্ছাসেবী দায়িত্ব পালন করেন।

পুরোটা সময় আখাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসা জহির উদ্দিন এবং সাকিব হাসান ধ্রুব অক্লান্ত পরিশ্রম করে মানুষদের সারিয়ে তুলেন। সকালে কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন আত্মীয়ের অন্যতম সংগঠক ও পৌর মেয়র মো: তাকজিল খলিফা কাজল।

পরে আখাউড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কাশেম ভূইয়া, উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক জয়নাল আবেদিন, যুগ্ম আহবায়ক মনির হোসেন বাবুল, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি এ্যাডভোকেট আব্দুল্লাহ ভূইয়া বাদলসহ অতিথিরা কেন্দ্র পরিদর্শন করেন। এসময় তারা আত্মীয় কার্যক্রমের ভূয়ষী প্রশংসা করেন।

আত্মীয় সংগঠনের সমন্বয়ক রাকিব হাসান ও শেখ দীপু বলেন, এখানে মানুষকে বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা দিতেই মেডিকেল সেন্টার খুলেছিলাম। আমার উদ্যোগটি কাজেও লেগেছে। আজ অনেকেই সংজ্ঞা হারিয়েছেন। প্রায় শতাধিক মানুষকে আমরা চিকিৎসা সেবা দিতে পেরে ভালো লাগছে।

আখাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা লুৎফুর রহমান বলেন, তাৎক্ষণিক তাঁর ইসিজি করা হয়েছে। তাঁর অক্সিজেনের ও ডায়াবেটিসের মাত্রা ভালো ছিল। তবে পানি শূন্যতায় রক্তে নিম্ন চাপের কারণে তিনি সংজ্ঞা হারান।